1. netpeonbd@gmail.com : Desk Report : Desk Report
  2. netpeoneditor@gmail.com : Desk Report : Desk Report
  3. admin@irisnewsbd.com : irisnewsbd : Ali Siddiki
  4. naimurrahman4969@gmail.com : naimur rahman naeem : naimur rahman naeem
  5. raju.aamar.fm@gmail.com : Raisul Islam Chowdhury : Raisul Islam Chowdhury
  6. azizul.basir@gmail.com : Azizul Basir : Azizul Basir
  7. rifathossain3535@gmail.com : rifat hossain : rifat hossain
  8. mdriyadhasan700@gmail.com : Riyad hasan : Riyad hasan
নরকের দরজা বন্ধ করছে তুর্কমেনিস্তান - Iris News
বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:১০ অপরাহ্ন

নরকের দরজা বন্ধ করছে তুর্কমেনিস্তান

সংবাদ সংগ্রহকারীঃ
  • তথ্য হালনাগাদের সময়ঃ মঙ্গলবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৩১ প্রদর্শিত সময়ঃ
নরকের দরজা বন্ধ করছে তুর্কমেনিস্তান
নরকের দরজা বন্ধ করছে তুর্কমেনিস্তান

তুর্কমেনিস্তানে ‘নরকের দরজা’ বলে পরিচিত মরুভূমি গর্তের আগুন নেভানোর নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট গুর্বাংগুলি বের্দিমুহামেদভ। অগ্নিকুণ্ডটি মূলত একটি জমে থাকা গ্যাসের গর্ত। কয়েক দশক ধরে এটি জ্বলছে।পরিবেশ ও স্বাস্থ্যগত কারণে এই আগুন নেভানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে সেখান থেকে গ্যাস রপ্তানিও বাড়াতে চায় তুর্কেমেনিস্তান।দেশটির প্রেসিডেন্ট এক টেলিভিশন ভাষণে বলেন, “আমরা মূল্যবান প্রাকৃতিক সম্পদ হারাচ্ছি যার জন্য আমরা উল্লেখযোগ্য মুনাফা পেতে পারি এবং আমাদের জনগণের কল্যাণে তাদের ব্যবহার করতে পারি।তিনি কর্মকর্তাদের “আগুন নেভাতে একটি সমাধান খুঁজে বের করার” নির্দেশ দিয়েছেন।

দশকের পর দশক ধরে তুর্কেমেনিস্তানের বিশাল কারাকুম মরুভূমির এক গর্তে জ্বলছে আগুন। কারাকুম মরুভূমির দারভাজা গর্তে জ্বলা এই আগুনকে ঘিরে রয়েছে নানা রহস্য। ‘নরকের দরজা’ খ্যাত মরুর বুকের এই গর্ত তুর্কেমেনিস্তানের সবচেয়ে জনপ্রিয় পর্যটন আকর্ষণের একটি।দীর্ঘ পাঁচ দশক ধরেই আগুন জ্বলছে গর্তটিতে। স্থানীয় তুর্কমেন ভূতত্ত্ববিদদের মতে, ১৯৬০-এর দশকে ভূতাত্ত্বিক কারণে এত বড় আকারের গর্ত তৈরি হয়েছে। আর এতে আগুন জ্বলতে শুরু করে আশির দশকে। অনেকেই আবার মনে করেন, ১৯৭১ সালে সোভিয়েত আমলে চালানোে খনন কার্যক্রমের সময় এর সৃষ্টি।

তবে ২০১৩ সালে কানাডার অনুসন্ধানকারী জর্জ কৌরোনিস গর্তের গভীরতা পরীক্ষা করেন। সেই গবেষণায় জানানো হয়, এই গর্ত কবে সৃষ্টি হয়েছে বা কবে থেকে এর আগুন জ্বলছে, তা কেউ জানে না।প্রতিবছর হাজারো পর্যটক ভিড় করেন গর্তটি দেখতে। স্থানীয়দের বিশ্বাস, এই দরজা দিয়েই যেতে হয় নরকে। আর তাই জায়গাটির নাম দিয়েছেন, নরকের দরজা। তবে ২০১৮ সালে এর নাম আনুষ্ঠানিকভাবে এর নাম দেয়া হয় শাইনিং অব কারাকুম বা কারাকুমের উজ্জ্বলতা।বিবিসি জানায়, পরিবেশ ও স্বাস্থ্যগত কারণে এটি বন্ধ করতে চান গুরবাঙ্গুলি। এরইমধ্যে গর্তের আগুন নেভাতে একটি উপায় বের করতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। এর আগে অসংখ্যবার এই আগুন নেভানোর চেষ্টা করলেও তা সম্ভব হয়নি।

খবরটি আপনার স্যোশাল টাইমলাইনে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই জাতীয় আরও অন্যান্য খবর

কপিরাইট © ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । আইরিস নিউজ বিডি.কম,আইরিস মিডিয়া বাংলাদেশের একটি  প্রতিষ্ঠান ।

error: Content is protected !!