1. netpeonbd@gmail.com : Desk Report : Desk Report
  2. netpeoneditor@gmail.com : Desk Report : Desk Report
  3. admin@irisnewsbd.com : irisnewsbd : Ali Siddiki
  4. naimurrahman4969@gmail.com : naimur rahman naeem : naimur rahman naeem
  5. raju.aamar.fm@gmail.com : Raisul Islam Chowdhury : Raisul Islam Chowdhury
  6. azizul.basir@gmail.com : Azizul Basir : Azizul Basir
  7. mdriyadhasan700@gmail.com : Riyad hasan : Riyad hasan
ড্রামে ভোজ্যতেল বিক্রি বন্ধ হবে কবে? - Iris News
বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ০৯:০০ অপরাহ্ন

ড্রামে ভোজ্যতেল বিক্রি বন্ধ হবে কবে?

সংবাদ সংগ্রহকারীঃ
  • তথ্য হালনাগাদের সময়ঃ বৃহস্পতিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১১ প্রদর্শিত সময়ঃ
ড্রামে ভোজ্যতেল বিক্রি বন্ধ হবে কবে?
ড্রামে ভোজ্যতেল বিক্রি বন্ধ হবে কবে?

২০২০ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে ড্রামে ভোজ্যতেল বাজারজাত বন্ধ করে ফুডগ্রেড প্যাকে ভিটামিন-এ মিশ্রিত তেল বাজারজাত করতে নির্দেশ দেওয়া হলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। চলতি বছর মার্চে শিল্প মন্ত্রণালয়ের এ সংক্রান্ত কমিটির সুপারিশে বিধি অনুযায়ী ফুডগ্রেড পাত্রে লেবেল ও মালিকের নাম জানিয়ে সব রিফাইনারি প্রতিষ্ঠানকে ভোজ্যতেল বাজারজাত করতে বলা হয়। বিএসটিআইয়ের আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতেও বলা হয়। তারপরও খোলা তেল বিক্রি হচ্ছে অহরহ।

সূত্র জানিয়েছে, বিশুদ্ধ ভোজ্যতেল নিশ্চিত করা ও দর ঠিক রাখতে নির্দেশনাটি বাস্তবায়ন জরুরি। ওজন নিয়ে প্রতারণা ঠেকাতেও তেল বোতলজাত করা উচিৎ বলে মনে করেন অনেকে। তাদের মতে, বোতলজাত তেলে যেহেতু উপকরণ লাগানো লেবেল থাকা বাধ্যতামূলক, তাই এর ব্যত্যয় ঘটার আশঙ্কা কম।ওজনে গরমিল পাওয়া গেলেও দায়ী প্রতিষ্ঠানকে শনাক্ত করা সহজ হবে। আবার বোতলের গায়ে লেখা দামে বিক্রি করা বাধ্যতামূলক বলে ক্রেতাদের প্রতারিত আশঙ্কাও কম থাকবে। এমনটাই মনে করে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর কর্তৃপক্ষ।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, দেশে ভোজ্যতেল পরিবহনের ড্রামগুলো নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর। দেশে প্রতিবছর প্রায় ২০ লাখ টন ভোজ্যতেল বাজারজাত হয়। মাত্র ৩৫ শতাংশ তেল বোতলে থাকে। বাকিটা থাকে রাসায়নিক, মবিল বা অন্যান্য পণ্যের ব্যবহৃত অস্বাস্থ্যকর ড্রামে। নিয়ম অনুযায়ী ভোজ্যতেলে ভিটামিন-এ সমৃদ্ধকরণও বাধ্যতামূলক। কিন্তু ড্রামে বাজারজাত হলে করা তাতে পরিমিত মাত্রায় ভিটামিন-এ থাকে না। তাছাড়া বাজারজাতের সময় রিফাইনারিগুলো ড্রামে কোনও লেবেলও ব্যবহার করে না। এ কারণে অনেক সময় বিএসটিআই ড্রামের মালিককে খুঁজে পায় না।

শিল্প মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, বিএসটিআই ২০১৮ সাল থেকে এ বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বোতলজাত তেলের ৫২০টি ও ড্রামজাত তেলের ৩৯৩টি নমুনা পরীক্ষা করেছে। ফলাফলে দেখা গেছে, বোতলজাত তেলের ৮৭ শতাংশ বোতলে ভিটামিন-এ পাওয়া গেছে। অন্যদিকে ভিটামিন এ পাওয়া গেছে ৫২ দশমিক ৬৭ শতাংশ ড্রামে।ফর্টিফায়েড অব এডিবল অয়েল ইন বাংলাদেশ শীর্ষক কারিগরি সহায়তা প্রকল্পের আওতায় সম্প্রতি অনুষ্ঠিতে এক কর্মশালার সুপারিশ অনুযায়ী ভোজ্যতেল রিফাইনারি ও এ সংশ্লিষ্ট সমিতিকে ২০২০ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে ড্রামের ভোজ্যতেল বন্ধ করে ফুডগ্রেড প্যাকে ভিটামিন-এ মিশ্রিত তেল বাজারজাত নিশ্চিত করতে বলা হলেও তা আজ অবধি বাস্তবায়ন হয়নি।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রাজধানীর কাওরানবাজারের ব্যবসায়ী লাল মিয়া বললেন, ‘আমরা বোতলজাত এবং খোলা ‍দুই ধরনের ভোজ্যতেলই বিক্রি করছি। দাম কিছুটা কম পায় বলে অনেক ক্রেতা খোলাটা কিনতে চান।’এ প্রসঙ্গে সিটি গ্রুপের মহাব্যবস্থাপক বিশ্বজিত সাহা জানিয়েছেন, ‘নির্দেশনা সম্পর্কে আমরা অবগত। কোম্পানি থেকে উৎপাদিত শতভাগ ভোজ্যতেল প্যাকেটজাত করে বাজারজাত করার কাজ চলছে।’

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালক বাবলু কুমার সাহা জানিয়েছেন, ‘বিভিন্ন কারণে হয়তো শিল্প মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা কার্যকর করা যাচ্ছে না। তবে অচিরেই কার্যকর হবে।’শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন জানিয়েছেন, ‘সকল প্রকার ভোজ্যতেল প্যাকেটেই বিক্রি করতে হবে। খোলা কোনও ভোজ্যতেল বিক্রি করতে দেওয়া হবে না। এ সংক্রান্ত কমিটি ও প্রকল্প যৌথভাবে একসঙ্গে কাজ করছে। অচিরেই নির্দেশনাটি শতভাগ বাস্তবায়ন হবে।’

খবরটি আপনার স্যোশাল টাইমলাইনে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও অন্যান্য খবর

কপিরাইট © ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । আইরিস নিউজ বিডি.কম,আইরিস মিডিয়া বাংলাদেশের একটি  প্রতিষ্ঠান ।

error: Content is protected !!