1. netpeonbd@gmail.com : Desk Report : Desk Report
  2. netpeoneditor@gmail.com : Desk Report : Desk Report
  3. admin@irisnewsbd.com : irisnewsbd : Ali Siddiki
  4. raju.aamar.fm@gmail.com : Raisul Islam Chowdhury : Raisul Islam Chowdhury
  5. azizul.basir@gmail.com : Azizul Basir : Azizul Basir
  6. mdriyadhasan700@gmail.com : Riyad hasan : Riyad hasan
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০৬:৩৭ অপরাহ্ন

গ্রিন ফাঙ্গাস করোনা রোগীদের মৃত্যু ঝুঁকি বাড়ায় তিন গুণ

সংবাদ সংগ্রহকারীঃ
  • তথ্য হালনাগাদের সময়ঃ শুক্রবার, ২৫ জুন, ২০২১
  • ১৮ প্রদর্শিত সময়ঃ
গ্রিন ফাঙ্গাস করোনা রোগীদের মৃত্যু ঝুঁকি বাড়ায় তিন গুণ
গ্রিন ফাঙ্গাস করোনা রোগীদের মৃত্যু ঝুঁকি বাড়ায় তিন গুণ

করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে গ্রিন ফাঙ্গাসের সংক্রমণ বাড়ছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই সংক্রমণে গুরুতর রোগীদের মৃত্যুর ঝুঁকি তিনগুণ বেশি।গত সপ্তাহে ভারতে গ্রিন ফাঙ্গাস সংক্রমণ বা অ্যাসপারগিলোসিসে আক্রান্ত প্রথম ব্যক্তির খবর পাওয়া যায়। করোনা সংক্রমণ থেকে সুস্থ হওয়ার পথে থাকা এই ব্যক্তিকে এয়ারলিফটে হাসপাতালে নেওয়া হয়। ৩৪ বছরের এই ব্যক্তির নাক দিয়ে রক্ত পড়া ও প্রচণ্ড জ্বর ছিল। পরীক্ষায় তিনি গ্রিন ফাঙ্গাসে সংক্রমিত বলে জানা যায়।

গ্রিন ফাঙ্গাস সংক্রমণের জন্য দায়ী অ্যাসপারগিলাস। এই ছত্রাকটি ঘরে ও বাইরে থাকে। অসুস্থ না হয়েই অনেক মানুষই নিঃশ্বাসের সঙ্গে অ্যাসপারগিলাসের বীজ গ্রহণ করতে পারে। কিন্তু এর ফলে অ্যালার্জি প্রতিক্রিয়া, ফুসফুসে সংক্রমণ এবং অন্যান্য অঙ্গে সংক্রমণ দেখা দিতে পারে।নিউ ইয়র্কভিত্তিক উন চুং আলব্যানি মেডিক্যাল সেন্টারের বিজ্ঞানীদের এক পর্যালোচনায় উঠে এসেছে, হাসপাতালে ভর্তি হওয়া করোনা রোগীদের মধ্যে ১৩ দশমিক ৫ শতাংশের এমন পরিস্থিতি ছিল।

বিজ্ঞানীরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ১৯টি গবেষণা পর্যালোচনা করেছেন। তারা জানতে পেরেছেন, ১ হাজার ৪২১ জন করোনা রোগীর পালমনারি অ্যাসপারগিলোসিস (সিএপিএ) আছে।

এর মধ্যে ভারতে শনাক্ত হওয়া রোগীর কথা ছিল না। তবে অপর এক বিশেষজ্ঞ মনে করেন, ভারতে এই রোগে আক্রান্ত কয়েকশ’ মানুষের কথা হয়ত জানা যায়নি।

গ্রিন ফাঙ্গাস ও করোনা রোগীদের মধ্যে সংযোগ বিষয়ে নিউ ইয়র্কভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির এক প্রতিবেদনের উপসংহারে বলা হয়েছে, এর ফলে হাসপাতালে থাকার সময় দীর্ঘায়িত হতে পারে।

গ্লোবাল অ্যাকশন ফান্ড ফাঙ্গাল ইনফেকশন্স-এর প্রধান নির্বাহী ও ম্যানচেস্টার ইউনিভার্সিটির অ্যাসপারগিলোসিস বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডেভিড ডেনিং বলেন, ২০২০ সালে সিএপিএ নিয়ে অনেক বিশেষজ্ঞ সচেতনতার কথা বলেছিলেন। কিন্তু ভারতে গুরুতর করোনা রোগীদের সংক্রমণের বিষয়ে এই সচেতনতা কাজে লাগেনি। ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণ অপ্রত্যাশিত ছিল। কিন্তু সিএপিএ’র সংক্রমণের কথা আশঙ্কা করা হচ্ছিল। এরপরও প্রস্তুতি ছিল না।

করোনায় মৃতদের মধ্যে কত জনের সঙ্গে ফাঙ্গাসের সংশ্লিষ্টতা ছিল এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কোর্টিকস্টেরয়েডের ব্যাপক ব্যবহার, গ্রিন  ফাঙ্গাসের সর্বব্যাপী প্রকৃতির কারণে এই সংখ্যা কয়েক হাজার হতে পারে।

ভারতের ইন্সটিটিউট অব মেডিক্যাল এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চের বিজ্ঞানীরা তাদের গবেষণায় জানিয়েছেন, করোনায় গুরুতর আক্রান্তদের ক্ষেত্রে গ্রিন ফাঙ্গাস সংক্রমণে মৃত্যু ঝুঁকি অন্যদের তুলনায় ২.৮ গুণ বেশি।

View Post

খবরটি আপনার স্যোশাল টাইমলাইনে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও অন্যান্য খবর

কপিরাইট © ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । আইরিস নিউজ বিডি.কম,আইরিস মিডিয়া বাংলাদেশের একটি  প্রতিষ্ঠান ।

error: Content is protected !!